প্রতিদিনের রুপ-রুটিনে গোলাপ জল

গোলাপকে বলা হয় ভালোবাসা ও সৌন্দর্যের প্রতীক। প্রাচীন রোমান ও গ্রীকদের সময় থেকেই সৌন্দর্যচর্চায় গোলাপ ফুলের পাপড়ি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এর নানাবিধ গুণ ও মিষ্টি সুবাসের জন্য গোলাপকে ফুলের রানী বলা হয়। আর রানী উপাধি তো আর এমনে এমনেই দেওয়া হয় নি; এর অসংখ্য গুণাবলির জন্যই দেওয়া হয়েছে। তাই আসুন জেনে নেই, রোজ ওয়াটার বা গোলাপ জল ব্যবহারের কিছু কৌশল যা ব্যবহার করতে পারবেন আপনি প্রতিদিনের রুপচর্চায়,  

ত্বকের ক্লান্তি দূর করতে

ত্বকের ক্লান্তি দূর করতে কাজ দেয় গোলাপ জল। চোখে মুখে রোজ ওয়াটার বা গোলাপ জল ছেটালে চেহারায় ফ্রেশ ভাব আসে। প্রতিদিন মেক আপ করার আগে যদি গোলাপ জল ছেটানো যায় তাহলে চেহারায় মেকআপও ভালো বসে এবং ফ্রেশ ভাবও আসে। গোলাপ জলের মিষ্টি গন্ধ মন ভালো করতেও সাহায্য করে। গবেষকরা বলেন, মানসিক চাপ অনেকটা হালকা হয়ে যায় গোলাপ জলের গন্ধে। Coconut Oil Care BD এর Organic Rose Water পাবেন স্প্রে বোতলেই, তাই যখন তখন ব্যবহার করতে পারবেন আরও সহজে।

রোদে পোড়া ভাব দূর করতে

গোলাপ জলে আছে পাওয়ারফুল অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ভিটামিন ‘সি’। তাই গোলাপ জল আপনার স্কিনকে প্রতিনিয়ত ড্যামেজ হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে, সেই সাথে সূর্যের অতিরিক্ত তাপে ত্বকে রোদে পোড়া দাগ দূর করতেও সাহায্য করে। প্রতিদিন শাওয়ারে পানির সাথে রোজ ওয়াটার মিশিয়ে ব্যবহার করুন, ব্যাস হয়ে যাবে আপনার কাজ!

প্রাকৃতিক সুগন্ধি হিসাবে

অর্গানিক ও প্রাকৃতিক ইনগ্রেডিয়েনটস সমৃদ্ধ বিভিন্ন প্রসাধনীতে রোজ ওয়াটার ব্যবহার করা হয় এর লাক্সারিয়াস অ্যারোমার জন্য। এমনকি, বিভিন্ন আর্টিফিশিয়াল ফ্রেগনেন্সের বিকল্প হিসাবেও আপনি ব্যবহার করতে পারবেন রোজ ওয়াটার।  

টোনার হিসাবে

যারা স্কিনকেয়ার রুটিনে সবসময় অর্গানিক প্রোডাকটস রাখতে চান তারা নির্দিধায় টোনিং এর কাজ সেরে ফেলতে পারেন অর্গানিক রোজ ওয়াটার দিয়ে। গোলাপ জল ত্বকে pH-এর সমতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন ক্লিনজিং এর পর তুলো দিয়ে সারা মুখে গোলাপ জল লাগাতে পারেন। এতে ত্বক টানটান হবে আর আপনিও থাকবেন সতেজ। এক্ষেত্রে, ব্যবহার করতে পারেন Mintique এর Organic Rose Toner

প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসাবে

না না ভুল পড়ছেন না! রোজ ওয়াটার শুধু আপনার ত্বকের জন্যই নয়, আপনার চুলের জন্যও উপকারী। শ্যাম্পু করার পর এক কাপ রোজ ওয়াটার দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। ন্যাচরাল কন্ডিশনার হিসেবে খুব ভালো কাজ করে গোলাপ জল। শুধু তাই নয়, ড্যানড্রাফ, ড্রাই এবং ইচি স্ক্যাল্পের জন্য ও রোজ ওয়াটারের অ্যান্টিসেপটিক গুনাবলি রয়েছে। তাই রোজ ওয়াটার দিয়ে চুল নিয়মিত ম্যাসাজ করলেও পাবেন উপকার।

মেকআপ রিমুভার

গোলাপ জল ব্যবহার করা যায় মেকআপ রিমুভার হিসাবেও। বেশিরভাগ মেকআপ রিমুভারে নানারকম রাসায়নিক পদার্থ থাকে যা ক্ষতি করে ত্বকের। গোলাপ জলের সঙ্গে নারকেল তেল মিশিয়ে মেকআপ পরিষ্কার করলে ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে না। আর ত্বকও হয়ে ওঠে কোমল ও দাগমুক্ত।

অ্যাকটিভেটর হিসাবে

যেকোনো পাউডার বেসড ফেসপ্যাক সাধারনত আমরা পানি মিশিয়ে ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু ত্বকের এক্সট্রা যত্নে এখন থেকে ব্যবহার করতে পারেন গোলাপ জল। গোলাপ জল মিশিয়ে যেকোনো ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে ত্বকের জন্য পাওয়া যায় দ্বিগুণ পুষ্টি। এতে ত্বক যেমন হয় পরিষ্কার, তেমনি হয় উজ্জ্বল।

চোখের ফোলাভাব কমাতে

চোখের চারপাশের অংশের চামড়া খুব পাতলা হয়। তাই স্পর্শকাতর এই অংশটির যত্নও নিতে হয় খুবই সচেতনতার সাথে। চোখ যদি ক্লান্ত ও ফোলা ফোলা লাগে তবে ঠাণ্ডা গোলাপ জলে তুলা ভিজিয়ে চোখের ওপর লাগিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। চোখের ফোলা ভাব কমে যাবে। এছাড়া, ডার্ক সার্কেল কমাতেও নিয়মিত গোলাপ জল ব্যবহার করতে পারেন।


ঠোঁটের যত্নে

ঠোঁটের রঙ কালো বলে দুশ্চিন্তা? এর জন্যও আছে উপায়- গোলাপ জল। গোলাপ জলের সাথে দুধ ও মধু মিশিয়ে ঠোঁটে প্রতিদিন প্যাক হিসাবে ব্যবহার করুন। ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ঠোঁট হয়ে উঠবে গোলাপি।

একের ভিতর এত গুনাগুণ সমৃদ্ধ এই ম্যাজিকাল প্রোডাক্টটি তাহলে যোগ করতে ভুলছেন না তো আপনার প্রতিদিনের রুপ রুটিনে?

Leave a Reply