কফি অয়েলের ৭ গুণাগুণ

কফি প্রেমীদের জন্য সুন্দর একটি দিন শুরু করতে এক কাপ গরম কফি-ই যথেষ্ট। কফির সুবাস যেমন আমাদের মন চাঙ্গা করে দেয়, তেমনি শরীরের ক্লান্তিও দূর করে ফেলে নিমিষে। পরিমিত কফি পানের গুনাগুণ কিন্তু এখানে সীমাবদ্ধ নয়, রুপচর্চায়ও কফির তুলনা নেই। আর তা যদি হয় ভিটামিন ‘ই’, বিভিন্ন অ্যাসেনশিয়াল ফ্যাটি এসিড ও রিচ নিউট্রিয়েন্টস সমৃদ্ধ কফি বিন থেকে তৈরি অয়েল, তাহলে তো আর কথা-ই নেই! আজকের ব্লগটি বিশেষ এই কফি অয়েলের অনেক ধরনের উপকারিতা নিয়ে, যা তৈরি করা হয়েছে সম্পূর্ন প্রাকৃতিক ভাবে এবং কোনো ধরনের কেমিকেলের ছোঁয়া ছাড়াই।

A z u r i a – Beauty and the Bean Multipurpose Coffee Oil এর বিশেষ গুনাগুন এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান আপনার চুল ও ত্বককে রাখবে প্রাকৃতিক ভাবে কোমল ও উজ্জ্বল। চলুন জেনে নেওয়া যাক এর বহুবিধ ব্যবহার সম্পর্কে –

১। ত্বকের সেলুলাইট দূর করতে – কেমিক্যাল ছাড়া সেলুলাইট দূর করা অসম্ভব ভাবছেন? তাহলে জেনে নিন, কফি অয়েল ডেইলি ময়েশ্চারাইজার হিসাবে ব্যবহার করলে বডি সেলুলাইট দূর হবে অনেক সহজে। কফি অয়েলে আছে ভিটামিন ‘ই’ এবং অ্যাসেনশিয়াল নিউট্রিয়েন্টস যা ময়েশচারাইজার হিসাবে ব্যবহার করলে শুধু যে ত্বক কোমল ও তুলতুলে হবে তা-ই নয়, দূর হবে অনাকাঙ্ক্ষিত সেলুলাইটও! আর এর সবচেয়ে ভালো দিক হলো, আপনার ত্বক ড্রাই হোক আর অয়েলি, যেকোনো স্কিন টাইপেই ময়েশ্চারাইজার হিসাবে এটি ব্যবহার করা যাবে।

২। চোখের ফোলা ভাব ও কালচে দাগ হ্রাস করতে – যেহেতু চোখের চারদিক সবারই অনেক পাতলা এবং সেনসেটিভ হয়ে থাকে, তাই অবশ্যই এমন কিছু ব্যবহার করা উচিত যেন চোখের জন্য কোনো ইরিটেশান তৈরি না হয়। অর্গানিক উপায়ে তৈরি কফি অয়েলের ক্যাফেইন আমাদের সংবেদনশীল ত্বকের পাফিনেস বা ক্লান্তি ভাব দূর করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন ঘুমের আগে চোখের চারপাশে কফি অয়েল ম্যাসাজ করে ঘুমাতে পারেন, এতে চোখের ফোলাভাব দূর তো হবেই সাথে চোখের চারদিক হবে উজ্জ্বল।

৩। সূর্যের তাপ থেকে প্রোটেকশান – কফি অয়েলে থাকা বিভিন্ন অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের মধ্যে অন্যতম হলো পলিফেনল। পলিফেনল আমাদের ত্বককে ক্ষতিকর UV (Ultraviolet) রশ্মি থেকে প্রোটেকশান দেয়, সেইসাথে সূর্যের তাপে এজিং এর মত সমস্যাও প্রতিকার করতে সাহায্য করে।

৪। একনে দূর করতে – কফি অয়েলের অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি গুনাগুন ত্বকের ব্যাকটেরিয়া দূর করে। ফলে একনে হওয়ার সমস্যা কমে যায় অনেকাংশে। সেই সাথে, ত্বকে কোনো একটিভ একনে থাকলে তাও খুব দ্রুত দূর করতে সাহায্য করে কফি অয়েল।

৫। রিংকেলস এবং এজিং প্রতিরোধে – কফি বিন অয়েলের ক্যাফেইন এবং অ্যাসেনশিয়াল ফ্যাটি এসিড ত্বকের প্রাকৃতিক কোলাজেন ও এলাস্টিন বৃদ্ধি করতে খুবই কার্যকরি। তাই নিয়মিত কফি অয়েল ত্বকের যত্নে ব্যবহার করলে আপনি পাবেন আপনার কাঙ্ক্ষিত ‘Younger Looking Skin’। সেইসাথে অল্প বয়সেই রিংকেলস বা ফাইন লাইনস নিয়ে দুশ্চিন্তাও আর করতে হবে না।

৬। চুল এবং স্ক্যাল্পের যত্নে –  আমাদের স্ক্যাল্প এবংচুল প্রাকৃতিক ভাবেই অ্যাসিডিক। ফলে, আমাদের চুল কিংবা স্ক্যাল্পের চেয়ে অতিরিক্ত pH লেভেলের হেয়ার প্রোডাক্টস আমাদের অজান্তেই চুলের জন্য অনেক ক্ষতি করছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এজন্যই চুল পড়া, হেয়ার ড্যামেজ ও ফ্রিজিনেস তৈরি হয়। কিন্তু কফি অয়েল চুলে ব্যবহার করলে চুল এবং স্ক্যাল্পের pH মাত্রার ভারসাম্য রক্ষা হয়, ফলে চুলের কোনো ক্ষতি হয়না; বরং উপকার হয় বহুগুণে। নিয়মিত স্ক্যাল্পে কফি অয়েল ম্যসাজ করলে চুল পড়া কমে, হেয়ার গ্রোথ বেড়ে যায়। চুলের ফ্রিজিনেস ও নিষ্প্রান ভাবও দূর হয় কফি অয়েলের গুণে।

৭। অ্যান্টি ডিপ্রেসেন্ট হিসাবে – কফির মত কফি অয়েলের সুবাস ও রিচ ফ্রেগনেন্স অনেকেরই মন ভালো করতে কাজ করে জাদুর মত। তাই, কফি অয়েল দিয়ে আপনি অ্যারোমা থেরাপির কাজও সেরে ফেলতে পারেন। এর জন্য প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে কটন বল কফি অয়েলে ভিজিয়ে আপনার বিছানার আশে-পাশেই রেখে দিবেন। কফির সুবাস আপনার সারাদিনের ক্লান্তিভাব দূর করতে সাহায্য করবে এবং সেইসাথে ডিপ্রেশান এবং দুশ্চিন্তা থেকে দূর রাখবে।

সম্পূর্ন অর্গানিক পদ্ধতিতে তৈরি   A z u r i a – Beauty and the Bean Multipurpose Coffee Oil এখন পাওয়া যাচ্ছে স্টাইলাইনে।
SHOP NOW https://www.stylinecollection.com/index.php?route=product/product&product_id=11760&search=coffee+oil

Leave a Reply