অরগ্যানিক এন্ড হেলদি যেই ফুডগুলো থাকতে পারে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায়

আমাদের প্রতিদিন যা খাচ্ছি মূলত সেসব দিয়েই তৈরি আমাদের ফুড রুটিন বা খাদ্যতালিকা। একটু ভেবে দেখুন তো, ফুড রুটিনে প্রতিবেলায় কী কী থাকছে তা নিয়ে কি খুব একটা সচেতন আপনি?

সচেতন না হয়ে থাকলে এখনই সময় বিশেষ সচেতনতনার। কেননা, প্রতিদিন রুটিন মাফিক সঠিক পুষ্টি উপাদান সমৃদ্ধ খাদ্যভ্যাস গড়ে তুলতে পারলেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে উঠবে যা দরকার এখন সবচেয়ে বেশি।
হেলদি ডায়েট শুনলে অনেকেই ভেবে থাকেন পানসে খাবার বা টেস্টি নয় এমন কিছু। তা কিন্তু মোটেই নয়! একটু সতর্ক হয়ে খাদ্য তালিকা তৈরি করে ফেললে টেস্টি খাবারের স্বাদ আপনিও নিতে পারেন। আসুন জেনে নেই এমন কিছু খাবার সম্পর্কে যেগুলো প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখা যেতে পারে –

বাদাম ও বীজ জাতীয় খাদ্য

বিকালের নাস্তায় ভাজা-পোড়া খাবারের বিকল্পে বেঁছে নিন বিভিন্ন ধরনের বাদাম! খেতেও যেমন সুস্বাদু আর পুষ্টিগুণেও ভরপুর। একমুঠো বাদাম যেমন; কাঠবাদাম, চিনাবাদাম, কাজুবাদাম বা পেস্তাবাদাম প্রতিদিন বিকেলের নাশতা হিসেবে উপযুক্ত। এসব খাবার হৃদরোগের ঝুঁকি ও ওজন কমানোর জন্য কার্যকরী। প্রোটিন ছাড়াও উচ্চমাত্রার ক্যালরি পাওয়া যায় পিনাট বাটার থেকে। তাই বাচ্চাদের টিফিনের জন্য ও বাদামের বিভিন্ন রেসিপি ট্রাই করতে পারেন।

অর্গ্যানিক ফ্রুটস

প্রতি Meal এর পর অবশ্যই রাখুন কোনো না কোনো ফল। এখন যেহেতু গ্রীষ্মের সময়, তাই চেষ্টা করুন মৌসুমি ফল খাদ্য রুটিনে বেশি রাখার। অর্গ্যানিক ও ফ্রেশ ফল দেহে ভিটামিনের ঘাটতি পূরন করবে। যারা ফল খেতে একদমই পছন্দ করেন না, সেক্ষেত্রে ফ্রুট স্মুথি বা জুস করে খেতে পারেন। তবে খাদ্য তালিকা থেকে ফল বাদ দেওয়া যাবে না কোনো ভাবেই। কারণ নিশ্চয়ই জানেন, ”An Apple a day, keeps the doctor away”।

হেলদি কুকিং অয়েল

তেল ছাড়া রান্না তো কখনোই সম্ভব নয়। কিন্তু খেয়াল রাখা উচিত যে তেলটি খাচ্ছেন তা কতভাগ খাঁটি। পুষ্টি বিজ্ঞানিদের মতে অলিভ অয়েল কুকিং পারপাসে ব্যবহার করা সবচেয়ে হেলদি। কেননা এতে থাকা প্রচুর পরিমানে Polyunsaturated Fatty Acids সুসাস্থ্য রক্ষায় সহযোগিতা করে। খাঁটি সরিষার তেলও প্রচুর গুনাগুণ সমৃদ্ধ যা ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। এছাড়া বেকিং, সালাদ ড্রেসিং কিংবা ডেসার্টে ব্যবহার করতে পারেন এক্সট্রা ভার্জিন কোকোনাট অয়েল বা বিভিন্ন ধরনের বাদামের তেল।

ওটস

সকালের শুরুতে ওটস দিয়ে করতে পারেন আপনার পারফেক্ট ব্রেকফাস্ট! কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ ওটস প্রোটিনের ভালো উৎস। আর ওটসের সাথে যদি যোগ করে ফেলতে পারেন দুই চামচ চিয়া সিডস তাহলে পুষ্টির পাশাপাশি ডায়াবেটিসও নিয়ন্ত্রনে রাখা সম্ভব।

তবে প্রতিটি খাবারই খেতে হবে পরিমানমত। কে কতটুকু খাবেন তা নির্ভর করবে আপনার শারীরিক অবস্থা ও ক্যালরির চাহিদার উপর। আর সেইসাথে অবশ্যই পানি পান করতে হবে প্রচুর পরিমানে।
তাই খাদ্যাভ্যাসের দিকে খেয়াল রাখুন এবং যে কোনো বয়সেই থাকুন ফিট আর হেলদি!
Neofarmers, ShoroborKhaas Food, NV Food, BioTech Mushroom, Farmzila, Shroom Ltd এবং Fit Food এর অরগ্যানিক সব খাবার দেখুন এই লিঙ্কে – https://bit.ly/sty_healthy_food